অল্টার কত প্রকার ও কি কি এবং অল্টার এর নাম

আপনি যদি গার্মেন্টসে চাকরি করে থাকেন বা গার্মেন্টসে চাকরি করতে চাচ্ছেন এমন হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে অবশ্যই অল্টার কত প্রকার ও কি কি এই বিষয়ে ধারণা রাখতে হবে। আর যদি আপনি অল্টার এর নাম গুলো এবং অল্টার কত প্রকার ও কি কি এই বিষয়ে ভালোমতো ধারণা পেতে চান তাহলে পোস্টটি শেষ পর্যন্ত করুন। 

তাহলে বন্ধুরা চলুন কথা না বাড়িয়ে আমরা অল্টার এর নাম এবং অল্টার কত প্রকার ও কি কি এই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা শুরু করে দেই ।

অল্টার কত প্রকার ও কি কি এবং অল্টার এর নাম 

যারা গার্মেন্টস এ চাকরি করে থাকে তারা যদি এই অল্টার সম্পর্কে ভালোমতো আইডিয়া না নেয় তাহলে তাদের গার্মেন্টস এর চাকরি চলে যেতে পারে । এছাড়াও আপনি যদি চাকরি না করে থাকেন এবং চাকরি করবেন ভাবছেন তাহলেও আপনাকে এই অল্টার এর প্রকার সম্পর্কে খুব ভালোভাবে বুঝতে হবে ।

তাই আমি আজকের এই মূল্যবান পোষ্টের মধ্যে গার্মেন্টস চাকরিজীবী মানুষদের জন্য অল্টার এর নাম গুলো এবং অল্টার কি বা অল্টার কাকে বলে সেগুলো সম্পর্কেও খুব সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে দেব। 

অল্টার কি | অল্টার কাকে বলে

অনেকেই হয়তো জানে না অলটার এর আরেক নাম হচ্ছে ডিফেক্ট । তাহলে প্রথমে আমরা অল্টার কত প্রকার ও কি কি এটা জানার আগে অল্টার কি এবং অল্টার কাকে বলে এই সম্পর্কে কিছু জেনে নেই।

গার্মেন্টস বা পোশাক শিল্পের মধ্যে কোন কাজের মধ্যে যদি কোন ধরনের ভুল হয় এবং সেই পোশাকটি ত্রুটিপূর্ণ হয়ে যায় তাহলে সেটাকে আমরা ডিফেক্ট বা অল্টার বলতে পারব।  সহজ ভাষায় বলতে গেলে গার্মেন্টস এর পণ্যগুলোর মধ্যে যদি কোন ধরনের ত্রুটি হয় বা তাদের গুণগত মান ক্ষুন্ন হয়ে যায় তাহলে সেটাই হচ্ছে অল্টার । আশা করি অল্টার কাকে বলে এটা সবাই বুঝে গেছেন। 

আরোও পড়ুনঃ   সেকেন্ডারি স্ট্যান্ডার্ড পদার্থ কাকে বলে এবং সেকেন্ডারি স্ট্যান্ডার্ড পদার্থ উদাহরণ

অল্টার কত প্রকার ? 

বন্ধুরা অনেকেই আসলে অল্টার কত প্রকার এই বিষয় সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে জানে না। তো আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই অলটার হচ্ছে প্রধানত ৩ প্রকার । তো এই তিন প্রকার এর মধ্যে আবার আলাদা আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য আছে যেগুলো চিহ্নিত করার মাধ্যমে আমরা অল্টার এর প্রকার আলাদা করতে পারি।

আর এই অল্টার এর নাম এবং কোন অল্টার এর মধ্যে কোন বৈশিষ্ট্য আছে সেগুলো আমরা অল্টার কত প্রকার ও কি কি এই পয়েন্ট বিস্তারিত আলোচনা করব।

অল্টার কত প্রকার ও কি কি | অল্টার এর নাম 

উপরে কিন্তু আমরা অল্টার কত প্রকার এই বিষয়ে জেনেছি আর সেটা হচ্ছে তিন প্রকার। তো এখন আমরা এই গার্মেন্টস অল্টার কত প্রকার ও কি কি সেটা নিয়ে বিস্তারিত আলোকপাত করব। এর সাথে আমরা অল্টার এর নাম গুলো অবশ্যই জানাবো।

ডিফেক্ট বা অল্টার এর নাম 

  • ১. ক্রিটিক্যাল অল্টার
  • ২. মেজর অল্টার
  • ৩. মাইনর অল্টার

আশা করি আপনারা অল্টার কত প্রকার এবং অল্টার এর নাম গুলো খুব ভালোভাবে জেনে গেছেন। যদি সেগুলো বুঝে থাকেন তাহলে চলুন এখন আমরা অল্টার এর এই আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য গুলো সম্পর্কে জেনে নেই।

১. ক্রিটিক্যাল অল্টার 

বন্ধুরা যে সকল অল্টার গ্রাহকের কোন ক্ষতির কারণ হয়ে বা গ্রাহক যে চুক্তি করেছিল তার আইন ভঙ্গ হয় সেগুলোকে সাধারণত আমরা ক্রিটিক্যাল অল্টার বলতে পারি। এছাড়াও মনের মধ্যে যে ভুলগুলো ক্রেতাগণের চোখে পড়লে সেই কোম্পানির সুনাম নষ্ট হয়ে যেতে পারে সেগুলো কেউ আমরা এই ক্রিটিক্যাল ক্রিটিক্যাল ধরতে পারবো।

পড়তে পারেনঃ measurements tape | মেজারমেন্ট টেপ এর হিসাব | মেজারমেন্ট কত প্রকার? A To Z

এখানে বলে রাখা ভালো অন্যান্য ক্রিটিক্যাল গুলোর থেকে এই ক্রিটিকাল ক্রিটিক্যাল সবথেকে বেশি বিপদজনক। কারণ এই ত্রুটি কোন একটি ভালো পণ্যকে সম্পূর্ণ অকেজো করে দিতে সক্ষম। যাই হোক নিচে আমরা এই ক্রিটিক্যাল অল্টার এর কিছু কারণ বা বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করলাম।

আরোও পড়ুনঃ   ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস এর বক্তব্য - ১৫ আগস্ট সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতা

  • পোশাকের উপর কোন ছাক্স বা দাগ পড়া
  • কোন পোশাকের বোতাম ভাঙ্গা থাকা বা খোলা থাকা
  • সেফটি রিকোয়ারমেন্ট গুলো পূরণ করা না থাকলে
  • কোম্পানির লেভেলিং এ ভুল করা বা কোন লেভেল না থাকা।
  • কোন পোশাক বা পণ্য ভেজা থাকা
  • এছাড়া কোন পোশাকের মধ্যে ছত্রাক থাকা
  • কাপড় নষ্ট হলে বা কাপড় থেকে কোন খারাপ গন্ধ আসলে

দেখতেই পাচ্ছেন কোন পোশাকের মান ভালো রাখতে হলে উপরের বিষয়গুলো কখনোই ত্রুটিপূর্ণ করা যাবে না। তাই ডিফেক্ট বা অল্টার গুলোর মধ্যে এই ক্রিটিক্যাল অল্টারকে সবথেকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়ে থাকে। 

২. মেজর অল্টার কি কি

বন্ধুরা এই অল্টার কত প্রকার ও কি কি পয়েন্টে এসে আমরা প্রথমে ক্রিটিক্যাল অল্টার সম্পর্কে আলোচনা করেছি এখন আমরা মেজর অল্টার কি কি এই বিষয়টি নিয়ে পাঠকদের উদ্দেশ্যে আলোচনা করব।

পণ্যের মধ্যে যে সকল ত্রুটি বা ডিফেক্ট থাকলে ক্রেতাগণ সেই পণ্যটি কিনতে চায় না বা সেই পণ্যের ওপর সন্তুষ্ট থাকে না এছাড়া পণ্য কিনে নিয়ে যাওয়ার পর কোন কারণে সেই পণ্য আবার ফেরত দিয়ে যায় সেই সকল ত্রুটিকে মেজর অল্টার বলা হয়। এই সময়ে ক্রেতাগণ খুব সহজেই পোশাকের মধ্যে ভুল খুঁজে বের করতে পারে যেটা তাদের অসন্তুষ্টির কারণ হতে পারে। 

যাই হোক নিচে আমরা এই মেজর অল্টার এর বৈশিষ্ট্য গুলো সহজভাবে উপস্থাপন করলাম ।

  • পোশাক পণ্যের মধ্যে কোন গর্ত বা ছেড়া থাকা
  • ত্রুটি পূর্ণ বা সেরা সিলাই থাকা 
  • পণ্যের মধ্যে কোন ভুল রং থাকা বা ডিজাইনে ঘাটতি
  • পোশাকের মধ্যে থাকা বোতামটি ভালোমতো যুক্ত না থাকা
  • পোশাক এর সাইজ ছোট কিংবা বড় হওয়া
  • অনিয়মিত spi থাকলে
  • পণ্যের গায়ে কোন ক্রাক বা স্টিজ থাকা

তো বন্ধুরা এগুলো ছাড়াও মেজর অল্টার আরও বেশকিছু কারণে হতে পারে । তবে এই মেজর অলটার হলে ক্রেতারা পণ্য ভালোমতো ক্রয় করতে চায় না। এক কথায় যে সকল কারণে ক্রেতাগণ কোন পণ্য কিনতে না চায় সেটাই মেজর অল্টার। আশা করি সবাই মেজর অল্টার কি কি এই সম্পর্কে ভালো মত আইডিয়া পেয়েছেন।

আরোও পড়ুনঃ   বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা গুলো জেনে নিং

৩. মাইনর অল্টার

পন্যের মধ্যে যে সকল ত্রুটি থাকলে ক্রেতা গণের পণ্যের ক্রয়ের আগ্রহের ওপর কোনো প্রভাব পড়ে না সেটাই সাধারণত মাইনর অল্টার বলা হয়। অর্থাৎ পোশাক বা পণ্যের মধ্যে কোন ছোটখাটো ভুল ত্রুটি থাকলে এবং সেই ভুলত্রুটি যদি পণ্যের বাহ্যিক সৌন্দর্য বা পণ্যের গুণগত মান নষ্ট না করে তাহলে সেটাকে আমরা মাইনর অল্টার বলতে পারি। 

তবে হ্যাঁ কোন পোশাকের উপর যদি বারবার এই একই ত্রুটি হয়ে থাকে তাহলে সেখানে গুণগত মান নষ্ট হওয়ার সম্ভনা থাকে, তাই অবশ্যই সেই বিষয়টাও খেয়াল রাখা উচিত। যাইহোক তাহলে আমরা অল্টার কত প্রকার ও কি কি এই বিষয়ে কিছু জানতে পেরেছি, এখন চলুন আমরা মাইনর অল্টার এর বৈশিষ্ট্যগুলো জেনে নেই;

  • থ্রেড ছাটাই না করলে 
  • পোশাকের মধ্যে কোন জায়গায় সেলাই না করলে বা সেলাইয়ের পরিমাণ বেশি হয়ে গেলে
  • পোশাকের টুকরো গুলোর মধ্যে কোন ধরনের ভুল ত্রুটি থাকলে
  • পোশাকের মধ্যে যত্ন লেবেলিং এর মধ্যে ভুল 
  • কোন শিপিং কাগজে লেবেল এর ভুল ছাপ থাকলে 
  • পোশাকের কোথাও কোন দাগ থাকলে এবং সেই দাগ যদি সহজেই তুলে ফেলা যায় 
  • এছাড়াও পণ্যের মধ্যে সেলাইয়ের ভিতর কোন সুতা না কাটলে
  • আবার যদি কোন সুতা লুজ থাকে সেক্ষেত্রেও

বন্ধুরা আশা করি আপনারা মাইনর অল্টার সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য জানতে পেরেছেন। যদিও এই অল্টার পণ্যের গুণগত মান নষ্ট করে না বা পন্য বিক্রয়ের সময় কোন ঝামেলা করে না তবুও আমাদের এই অল্টার এর ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

আমি আশা করছি আমার ওপরের লেখা গুলো পড়ার মাধ্যমে দর্শকগণ অল্টার কাকে বলে এ ছাড়া অল্টার এর নাম গুলো জানার পাশাপাশি গার্মেন্টস অল্টার কত প্রকার ও কি কি সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়েছে।

পরিশেষে

যারা গার্মেন্টস এ চাকরি করেন তাদেরকে অবশ্যই গার্মেন্টস অল্টার কত প্রকার ও কি কি সেগুলো সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে । যদি আপনারা এই অল্টার এর নাম ভালোমতো না জানেন এবং অলটার কাকে বলে সেগুলো বুঝতে না পারেন তাহলে আপনার কাজ করতে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে। 

আর যদি আপনি আমার পোস্টে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভালোমতো পড়ে থাকেন তাহলে আশা রাখতে পারি আপনি এই অল্টার সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য পেয়ে গেছেন। আমি প্রত্যেকটা বিষয় পাঠকদেরকে সহজ ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। তবে অলটার কত প্রকার ও কি কি এই বিষয়ে যদি কারো প্রশ্ন থাকে সেটা অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন।

ভালো লাগতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button