চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি – ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম

চুল হচ্ছে মানুষের সৌন্দর্যের প্রতীক । এই চুল যখন এলোমেলো থাকে তখন কাউকে সুন্দর দেখায় না । তো বন্ধুরা আজকের পোস্টে আমরা এই চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি এবং ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম সম্পর্কে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করব । তাই যদি আপনার চুল কোঁকড়ানো বা বাঁকা থাকে এবং আপনি এই চুলকে সোজা করতে চাচ্ছেন কিন্তু কোন ধরনের সমাধান পাচ্ছেন না তাহলে আজকের পোস্ট আপনার জন্য।

চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি – ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনারা পোষ্টের মাধ্যমে চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি সম্পর্কে খুব ভালোভাবে বুঝতে পারবেন। এছাড়াও ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম নিয়েও আমি বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা বলব তাই পোস্টের শেষ পর্যন্ত পড়বেন তাহলে আপনি আপনার চুলকে আগের থেকে অনেক ভালো এবং সমৃদ্ধি করে তুলতে পারবেন। চলুন বন্ধুরা তাহলে কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক ।

চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি - ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম

চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি

যদি আপনি ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনার চুল সোজা করতে পারেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনার অনেক টাকা বেঁচে যাবে । এছাড়া কেমিক্যাল এর হাত থেকে আপনার চুল ও রক্ষা পাবে। যার ফলে আপনার চুলে কোন ধরনের সাইড ইফেক্ট পরবে না এবং আপনার অর্থের ওপরও কোনো প্রভাব পড়বে না ।
আমি সব সময় বলি আপনারা সবসময় চেষ্টা করুন ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রাকৃতিকভাবে আপনাদের চিকিৎসা করার তাহলে কোন সাইড ইফেক্ট করবে না এতে করে আপনার শরীরের জন্য অনেক উপকার হবে । এখন আমি অনেক কম খরচে কলা দিয়ে এই চুল স্ট্রেইট করার উপায় সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। এটি ব্যবহার করে খুব সহজেই ঘরে বসে আপনারা কলা দিয়ে চুলের জন্য মাস্ক তৈরি করে সেটা ব্যবহার করে ভালো ফলাফল পেতে পারেন ।

পড়ুনঃএলার্জি চুলকানি দূর করার উপায় | চুলকানির ট্যাবলেট এর নাম | চুলকানি দূর করার ক্রিম

নিচে কলা দিয়ে চুলের জন্য মাস্ক তৈরি করার পদ্ধতি সম্পর্কে ধাপ আলোচনা করা হলো । ধাপগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করলে আপনি কলা দিয়েই আপনার চুলের জন্য মাস্ক সুন্দর ভাবে তৈরি করতে পারবেন ।

  • ১. সর্বপ্রথম আপনাকে দুইটি পাকা কলা নিতে হবে । এর সাথে ভালো দেখে ৩ চামুচ লেবুর রস নিবেন । তারপর দুই টেবিল চামচ পরিমাণ টক দই এবং সাথে দুই টেবিল চামচ মুলতানি মাটি নিবেন । এগুলো অবশ্যই ভালো দেখে নিবেন।
  • ২. এখন আপনাকে পাকা কলা দুটি থেকে খোসা সরিয়ে নিতে হবে এবং কলা দুটিকে ব্লেন্ডার মেশিন দিয়ে ভালোভাবে বেটে নিতে হবে।
  • ৩. কলা দুটি ব্লেন্ড হয়ে গেলে এর সাথে আপনার নেওয়া টক দই এবং মুলতানি মাটি খুব ভালোভাবে সংমিশ্রণ করে নেবেন ।
  • ৪. এর পর নতুন যে মিশ্রণটি তৈরি হলো সেখানে আপনার নেওয়া লেবুর রস দিয়ে খুব সুন্দর ভাবে মিশিয়ে নিন । অবশ্যই এমন ভাবে মিশাবেন যেন মিশ্রণটি নরম হয় ।
  • ৫. যখন সবগুলো উপাদান মিলিয়ে আপনার কাছে নতুন পেস্ট তৈরি হয়ে যাবে তখন এই পেস্টটিকে একটি পরিষ্কার ব্রাশে মিশিয়ে নিবেন ।
  • ৬. পেস্টটিকে সুন্দরভাবে মিশিয়ে নিয়ে  আপনার মাথার চুলে খুব সুন্দর ভাবে মিশিয়ে নিবেন যেন কোন চুল বাদ না থাকে ।
  • ৭. মিশ্রণটি যখন আপনার চুলের সাথে মেশানো হয়ে যাবে তারপর আপনি এভাবে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন । এরপর সাধারণ পানি দিয়ে আপনার মাথাটিকে আস্তে আস্তে মেসেজ করে ধুয়ে ফেলুন ।
আরোও পড়ুনঃ   টনসিল হলে কি কি খাওয়া যাবে না জেনে রাখুন

বন্ধুরা এভাবে যদি আপনি পেস্ট তৈরি করে আপনার চুলে লাগাতে পারেন তাহলে দেখবেন সাথে সাথেই আপনার কোকড়ানো চুল সোজা হয়ে গেছে ।

বিশেষ সতর্কতা :

যেহেতু এটি একটি প্রাকৃতিক উপায় তাই এটার কোন সাইড ইফেক্ট নেই কিন্তু পেস্ট তৈরি করার সময় অবশ্যই কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে । নিচে এই সাবধানতা গুলো আলোচনা করলাম।

  • মনে রাখবেন পেস্ট টি আপনি তখনই আপনার মাথায় লাগাবেন যখন আপনার মাথার চুল কোঁকড়ানো হয়ে যাবে প্রতিদিন কখনোই ব্যবহার করবেন না । এতে আপনার চুলের ক্ষতি হতে পারে।
  • যেহেতু পেস্ট নরম করতে বলা হয়েছে ,তবে পেস্ট নরম করার জন্য আপনারা কখনোই পানি ব্যবহার করবেন না । তবে পেস্ট নরম বা শক্ত হলে আপনারা মুলতানি মাটি ব্যবহার করে সেটা ঠিক করতে পারেন ।
  • কখনোই লেবুর রস ৪ চামুচ এর বেশি নিবেন না কারণ এখানে এসিড থাকে যেটা আপনার চুলের ক্ষতিও করতে পারে ।

উপরে বলা সতর্কতা গুলো অবলম্বন করে যদি আপনি সঠিকভাবে পেস্ট তৈরি করতে পারেন এবং সঠিকভাবে আপনার মাথার চুলে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার কোকড়ানো চুল খুব সহজে ঠিক করে ফেলতে পারবেন । আশা করি এতক্ষণ বলা চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি গুলো আপনারা বুঝতে পেরেছেন ।

ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম

বন্ধুরা এই পর্যায়ে এসে আমরা ছেলেদের চুলের স্ট্রেইট করার ক্রিম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব এই ক্রিমগুলোর দাম এবং ব্যবহার পদ্ধতি উল্লেখ করে দেবো যাতে করে আপনাদের সুবিধা হয়।

১. হেয়ার পার্ম ক্রিম

এই ক্রিমটি থাইল্যান্ডের একটি ক্রিম । এই ক্রিম আপনার চুলে ব্যবহার করলে যে শুধু আপনার চুল সোজা হবে এমনটা নয় আপনার চুলের উজ্জ্বলতা আরো বৃদ্ধি পাবে । কারণ এই ক্রিম এ আছে প্রটিন জাতীয় বিশেষ উপাদান যেগুলো আমাদের চুলের জন্য বেশ উপকারী । ক্রিমটির দাম ১২০০ টাকার মতো নিতে পারে ।

আরোও পড়ুনঃ   মেয়েদের টেস্টোস্টেরন হরমোন কমানোর উপায় বিস্তারিত জেনে নিন

২. সিপিএস কেরাটিন কোকোনাট ক্রিম

যখন আপনি কোন উপায় অবলম্বন করার পর আপনার চুল সোজা করে ফেলবেন তারপর আপনারা চাইলে এই ক্রিম ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনাদের চুলের বাড়িতে যত্ন নিতে পারেন । ক্রিমটি ব্যবহার করলে আপনাদের চুলের সতেজতা এবং উজ্জলতা বেড়ে যাবে । এছাড়াও যদি আপনার চুল কোন কারনে ড্যামেজ হয় কিংবা চুল ফেটে যায়, তাহলে এই সমস্যাটিও এই ক্রিম এর মাধ্যমে আপনি ঠিক করে ফেলতে পারবেন। ক্রিমটির বর্তমান বাজার মূল্য ১৫০০ টাকার আশেপাশে । তবে হ্যাঁ খেয়াল রাখবেন যখন আপনি ক্রিমটি মাথায় ব্যবহার করবেন তখন শুধুমাত্র চুলেই যেন লাগে , কোনভাবে যেন আপনার মাথার স্কালপে না লাগে ।

৩. মিল্ক প্রোটিন হেয়ার রিবন্ডিং ক্রিম

আপনার চুল যদি অনেক বেশি কোঁকড়ানো থাকে তাহলে এই ক্রিমটি আপনার জন্য পারফেক্ট । ক্রিম টি ব্যবহার করলে আপনার চুলের রুক্ষতা দূর হয়ে যাবে এবং আপনার চুল আগের থেকে কমল এবং সতেজ করে তুলবে । ভালো ব্যাপার হচ্ছে ক্রিম টির কোন ধরনের সাইড ইফেক্ট বা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই । তবে এই ক্রিম টির দাম ২৫০০ টাকার আশেপাশে হয়ে থাকে ।

৪. লোলেন পিক্সেল স্ট্রেইনিং ক্রিম

আপনার চুল যদি খুব বেশি কোকড়ানো হয়ে থাকে এবং আপনি খুব কম সময়ের মধ্যে এবং কম টাকা খরচ করে আপনার চুল গুলোকে সোজা করতে চাচ্ছেন তাহলে এই ক্রিমটি চাইলে আপনি ব্যবহার করে দেখতে পারেন । কারণ বন্ধুরা এই ক্রিমটি আপনাদের চুলকে খুব কম সময়ের মধ্যেই সোজা করে দিতে সক্ষম । জানলে অবাক হবেন ক্রিমটি ব্যবহার করার 10 মিনিটের মধ্যে আপনি ফলাফল দেখতে পাবেন । এটির বাজার মূল্যের মাত্র ৪৫০ টাকা । তবে হ্যাঁ এই ক্রিমটি বেশি ব্যবহার করা যাবে না আপনি চাইলে সল্প পরিমনে ব্যবহার করতে পারেন ।
আমরা এতক্ষণ ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম সম্পর্কে আলোচনা করলাম । এই ক্রিমগুলো ব্যবহার করলে আপনারা খুব সহজে আপনাদের চুলকে সোজা বা স্ট্রেইট করতে পারবেন ।

চুল সোজা করার মেশিন

আপনাদের অনেকের মাথার চুল কোঁকড়া কিন্তু আপনারা এই চুলকে সোজা করতে চান । তবে বিভিন্ন সমস্যার কারণে আপনারা ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন না বা চুল স্ট্রেট করার কোন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন না। আবার চুল সোজা করার জন্য কোন পার্লারেও যেতে পারেন না ।
আবার ধরেন এখন আপনি কোথাও যাবেন সেই সময়ে আপনার চুল সোজা করার প্রয়োজন পড়ে । কিন্তু আপনি হঠাৎ কোন উপায় খুঁজে পান না, ঠিক এই সময়ে আপনি চাইলে চুল সোজা করার মেশিন ব্যবহার করার মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার চুলগুলোকে আগে থেকে সোজা করে নিতে পারবেন । আমি নিচে বেশ কিছু ভালো চুল সোজা করার মেশিন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করলাম ।

১. সিরামিক প্লেট এর তৈরি মেশিন

এই সিরামিক প্লেটের তৈরি চুল সোজা করার মেশিনগুলো কোকড়ানো চুল সোজা করতে অনেক বেশি ব্যবহার করা হয়ে থাকে । বিভিন্ন বিউটি পার্লারেও এই ধরনের মেশিন ব্যবহার করে চুল সোজা করা হয়ে থাকে। তো বন্ধুরা আপনারা চাইলে এই সিরামিক প্লেটের তৈরি মেশিন গুলো ক্রয় করে এটা ব্যবহার করতে পারেন। তবে মেশিন কেনার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন এটি সিরামিক প্লেটের তৈরিই হয় ।

আরোও পড়ুনঃ   রাতে ঘুম আসে না কাজে মন বসে না কেন ও এর সমাধান

২. টারমালিন সিরামিক প্লেট এর তৈরি মেশিন:

বন্ধুরা আগে আমরা সিরামিক প্লেটে তৈরি মেশিন সম্পর্কে আলোচনা করলাম তার থেকেও বেশ উন্নত মানের এবং বেশ ভালো মেশিন এই টারমালিন সিরামিক প্লেটের তৈরি মেশিন গুলো । এই মেশিন ব্যবহার করলে আপনার চুল আগের থেকে বেশ ভালো তরতাজা হবে এবং কোন ধরনের সাইড ইফেক্ট করবে না। এছাড়াও এই মেশিনের মাধ্যমে খুব কম সময়ের মধ্যেই খুব সহজে চুল সোজা করে ফেলা যায় ।

৩. এলুমিনিয়াম প্লেট

যদি আপনি অ্যালুমিনিয়াম প্লেটের তৈরি চুল সোজা করার মেশিন ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে সাবধান করছি । কারণ এই সকল মেশিন ব্যবহার করলে চুলের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হতে পারে। চুল ফেটে যেতে পারে, চুল পড়ে যেতে পারে এছাড়াও চুল পাতলা হয়ে যেতে পারে । তাই এই সকল মেশিন ব্যবহার না করাই ভালো।

৪. টাইটানিয়াম প্লেট এর তৈরি

বন্ধুরা এই মেশিনগুলো যেহেতু টাইটেনিয়াম তৈরি হয় তাই এখানে বেশি পরিমাণ লোহা উপস্থিত থাকে । আর যেহেতু লোহা খুব সহজেই তাপ সংরক্ষণ করতে পারে তাই এগুলো খুব অল্প সময়ের মধ্যে চুলকে সোজা করে ফেলতে পারে । যদি আপনার মাথার চুল মোটা এবং ঘন ঘন হয়ে থাকে তাহলে আপনি এই মেশিন থেকে বেশ ভালো ফলাফল পাবেন ।

চুল স্ট্রেইট করতে কত টাকা লাগে

অনেকে আছেন যারা চুল স্ট্রেইট করতে কত টাকা লাগে এই প্রশ্নটি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জনকে করে থাকেন । কিন্তু এই প্রশ্নের উত্তর সঠিকভাবে দেওয়া সম্ভব নয়। কারন আপনার চুল সোজা করতে কত টাকা লাগবে এটা আপনি কিভাবে আপনার চুল সোজা করতেছেন সেটার উপর নির্ভর করবে ।
যদি আপনি পার্লারে গিয়ে আপনার চুল স্ট্রেইট করার চেষ্টা করেন তাহলে সেখানে আপনার খরচ আলাদা হবে এছাড়া যদি আপনি বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করে আপনার চুল স্ট্রেইট করতে চান সেখানেও আপনার খরচ ভিন্ন হয়ে যাবে । তবে বন্ধুরা আপনারা যদি চুল সোজা করার মেশিনের দাম জানতে চান তাহলে আমি আপনাদেরকে বলবো আপনারা বাজারে ৫০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে এই মেশিনগুলি পেয়ে যাবেন ।
আর যদি আপনারা ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম ব্যবহার করতে চান তাহলে একটি ক্রিমের দাম যেমন টাকা পড়বে ঠিক তেমন টাকা খরচ করেই আপনারা আপনাদের চুল সোজা করতে পারবেন । আশা করব চুল স্ট্রেইট করতে কত টাকা লাগে এই প্রশ্নটির উত্তর আপনারা পেয়ে গেছেন ।

পরিশেষেঃ

আজকের পোস্টে চুল স্ট্রেইট করার পদ্ধতি সম্পর্কে বেশ গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে । পোস্টে আমরা চুল স্ট্রেইট করার ঘরোয়া পদ্ধতি এবং ছেলেদের চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি।
এছাড়াও আমরা যে মেশিনগুলো সম্পর্কে আপনাদের ধারণা দিয়েছি আপনারা চাইলে সেই মেশিন গুলো ব্যবহার করেও আপনাদের চুল সোজা করতে পারবেন । তবে আমি সবসময় আপনাদের বলবো ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করেই আপনারা এই কাজগুলো করবেন । পোস্টে বলা কোন পয়েন্ট যদি আপনাদের বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ।

ভালো লাগতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button